অসুস্থ বৃদ্ধাকে সমুদ্র সৈকতে ফেলে দিয়ে গেল নাতি!

গুরুতর অসুস্থ এক বৃদ্ধাকে সমুদ্র সৈকতে ফেলে গেছে তাঁর নাতি। খবর পেয়ে পুলিশ ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের তাজপুর সমুদ্র সৈকতে।

পুলিশ জানিয়েছে, হাতে স্যালাইনের চ্যানেল ও মুখ থেকে লালা পরা অবস্থায় ওই নারীর নাতি তাকে সেখানে ফেলে পালিয়ে গেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সমুদ্র সৈকতে ওই নারীকে কাতরাতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। দীর্ঘক্ষণ তাঁকে একা পড়ে থাকতে দেখে সন্দেহ হয়। কিন্তু বৃদ্ধা করোনায় সংক্রমিত হয়ে থাকতে পারেন ভেবে আতঙ্কে তাঁর কাছে ঘেঁষার সাহস পাচ্ছিলেন না কেউ। শেষমেশ পুলিশে খবর দেওয়া হলে তারাই ওই নারীকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বৃদ্ধাকে দেখতে অনেকে ভিড় করলেও করোনার ভয়ে কাছে যাচ্ছিলেন না কেউ। পুলিশের সহায়তায় বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে দিঘা স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ওই বৃদ্ধা করোনা আক্রান্ত কিনা, এখনো জানা যায়নি। তবে গুরুতর অসুস্থ তিনি। উদ্ধারের সময় হাতে স্যালাইনের চ্যানেল ছিল। লালা পড়ছিল মুখ থেকে। ঠিক মতো কথা বলতে পারছিলেন না।

হাসপাতালে চিকিৎসা শুরু হওয়ার পর তাঁর পরিচয় জানার চেষ্টা করে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, তাঁর নাম গীতা দাস। তিনি কলকাতার শ্যামবাজারের বাসিন্দা।

পুলিশকে ওই বৃদ্ধা জানিয়েছেন, নাতির সঙ্গে গাড়িতে চেপে তাজপুর পৌঁছান তিনি। সৈকতে তাঁকে নামিয়ে জিনিস কেনার নাম করে গাড়ি নিয়ে বেরিয়ে যায় নাতি। আর ফেরেনি।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ওই বৃদ্ধার অবস্থা এখন স্থিতিশীল। নিজে থেকে নড়াচড়া করছেন। চিকিৎসায় সাড়াও দিচ্ছেন। তবে শরীর অত্যন্ত দুর্বল। আগামী কয়েক দিন তাঁর চিকিৎসা চলবে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

Facebook Comments Box