ঈদে ছুটির বিষয়ে যে নির্দেশনা দিল সরকার

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে তিনদিনের বেশি ছুটি না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সেই সঙ্গে লকডাউনের সীমা বাড়ানোর সঙ্গে বন্ধ রাখা হয়েছে বাসসহ আন্তজেলা গণপরিবহন। আজ (৩ মে) সোমবার মন্ত্রিপরিষদের বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্ত জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। ঈদের ছুটির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সরকার সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছে যে, কোনো বন্ধ দেয়া যাবে না। সরকারি বন্ধ এমনি তিনদিন। তিন দিনের দুদিন শুক্রবার ও শনিবার পড়ছে। আরেকদিন বৃহস্পতিবার।

তিনি বলেন, প্রাইভেট বা ইন্ডাস্ট্রি এ সময় বন্ধ দিতে পারবে না। ফলে বৃহস্পতি, শুক্র ও শনি এ তিন দিনের বাইরে কোনো বন্ধ থাকবে না। মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, সংক্রমণ রোধে চলমান বিধি-নিষেধ বহাল রাখতে হবে অন্তত ১৬ মে পর্যন্ত। এ সময় দেশে বিপণিবিতান খোলা থাকলেও স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করলে সেসব তাৎক্ষণিকভাবে বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এছাড়া সর্বত্র মাস্ক ব্যবহার না করলে প্রশাসনিকভাবে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়েও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানান খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

দেশে করোনার ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণের মধ্যে গত ১৪ এপ্রিল এক সপ্তাহের জন্য কঠোর লকডাউন দেয় সরকার। এরপর এক সপ্তাহ করে বিধিনিষেধের সময়সীমা বাড়ানো হয়। বর্তমানে তৃতীয় সপ্তাহ চলছে। আগামী বুধবার (৫ মে) চলমান বিধিনিষেধ শেষ হওয়ার কথা।

Read More – পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সীমান্ত বন্ধ থাকবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলছেন, পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বাংলাদেশের সীমান্ত বন্ধ থাকবে। আজ সোমবার (৩ মে) দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা জানান। এর আগে ভারতে করোনা পরিস্থিতি বেশ খারাপ হওয়ায় ভারতের সঙ্গে ১৪ দিন সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে বাংলাদেশ। এই অবস্থায় দিনাজপুরের হিলি সীমান্ত দিয়ে অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

Facebook Comments Box