বরিশালে সিজার ছাড়াই একসঙ্গে তিন ছেলের জন্ম

বরিশালের হিজলা উপজেলার গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের সিজার ছাড়া স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় সেলিনা বেগম নামক এক নারী একসঙ্গে তিনটি ছেলে সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। হিজলা উপজেলা হাসপাতালে শনিবার (৫ জুন) বিকাল ৪টায় শিশুগুলো ভূমিষ্ঠ হয়।
নবজাতকগুলোর ওজন কম ও শ্বাসকষ্ট থাকায় ডাক্তাররা উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদেরকে বরিশালের শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে। তবে অর্থাভাবে তা সম্ভব হয়নি। সেলিনা বেগম কালিকাপুর গ্রামের মোহাম্মদ ফারুক বেপারীর স্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার বেলা ২টার দিকে সেলিনা বেগম বাড়িতে অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ সময় স্বজনরা তাকে হিজলা উপজেলা সদর রেমেডি নামক প্রাইভেট ক্লিনিকে নিয়ে আসেন। রোগীর অবস্থা খারাপ দেখে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ দ্রুত সিজার করার কথা বলে তাদেরকে বরিশাল মেডিকেলে চলে যেতে বলেন।

এদিকে রোগীর পরিবার হতদরিদ্র হওয়ায় অ্যাম্বুলেন্সের ভাড়া যোগাড় করতে না পেরে উপায় না পেয়ে পাশের হিজলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে পৌঁছার পর প্রথম ছেলে জন্মগ্রহণ করে। এর পাঁচ মিনিট পরে আরেকটি এবং ১০ মিনিট পর তৃতীয় ছেলে সন্তান ভূমিষ্ঠ হয়।

হিজলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার সাহারাজ হায়াত এ বিষয়ে বলেন, সেলিনা বেগমকে তার স্বজনরা খুব অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে আনেন। এর এক থেকে দেড় ঘণ্টা পর নবজাতক শিশুগুলো জন্মগ্রহণ করে। মা সুস্থ থাকলেও নবজাতকগুলো খুবই অসুস্থ।

তিনি আরো বলেন, নবজাতক শিশুগুলোর শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্ট, ওজন কম ও ফুসফুসের সমস্যা আছে। তিন নবজাতককেই অক্সিজেন দিয়ে রাখা হয়েছে। জরুরী ভিত্তিতে ওদের আইসিইউতে নেয়া উচিত।

উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের বরিশাল মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হলেও পরিবারটি অর্থাভাবে হিজলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে। এতে শিশুগুলোর মৃত্যু ঝুঁকি আছে বলে জানান এ চিকিৎসক।

নবজাতক শিশুগুলোর বাবা ফারুক বেপারী এ বিষয়ে জানান, টাকার অভাবে তার সন্তানরা মারা যেতে পারেন। ফলে বিত্তবানদের কাছে আর্থিক সহায়তা কামনা করছেন তিনি।

Facebook Comments Box