বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে রাতে যে একাদশ নিয়ে নামতে পারে বাংলাদেশ

অপেক্ষার প্রহর শেষ হল। আর মাত্র কয়েক ঘন্টা পরই পর্দা উঠতে চলেছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এবারের আসরের। মূল পর্ব শুরুর আগে ৮ দলের বাছাইপর্ব দিয়ে শুরু হবে এবারের আসর। আজ বিকেলে ওমান ও পাপুয়া নিউগিনির ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের মর্যদাপূর্ণ এই টুর্নামেন্টের লড়াই। এরপর রাতে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামবে বাংলাদেশ ও স্কটল্যান্ড।

বিশ্বকাপ শুরুর আগে দুই প্রস্তুতি ম্যাচের ফলাফল নিজেদের পক্ষে ছিল না বাংলাদেশের। আয়ারল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই প্রস্তুতি ম্যাচে হারের পর বিশ্বকাপের মূলপর্বে যাওয়ার লড়াইয়ে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে নামবে টাইগাররা। আজ রাত ৮ টায় ওমানের আল আমেরাত ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুরু হবে এই ম্যাচ।

এদিকে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে অতীতে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে মাত্র একটি ম্যাচ খেলেছিল টাইগাররা। ২০১২ সালের জুলাই মাসে নেদারল্যান্ডসে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ-স্কটল্যান্ড ম্যাচে একক আধিপত্য বিস্তার করে স্কটিশরা। সেই ম্যাচে আগে ব্যাট করে রিচি বিরিংটনের সেঞ্চুরিতে ৭ উইকেটে ১৬২ রান করে স্কটল্যান্ড। টার্গেট তাড়ায় ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে ১৮ ওভারে ১২৬ রানেই অলআউট হয় মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দল। ৩৪ রানের সহজ জয় পায় স্কটিশরা।

তবে অতীতের সেই দুঃস্মৃতি পিছনে ফেলে র‌্যাংকিংয়ে ঢের এগিয়ে থাকা বাংলাদেশ দল নিজেদের প্রথম ম্যাচেই স্কটিশদের বিপক্ষে জয় আদায় করে নিতে পারবে সেই আত্মবিশ্বাস নিয়ে মাঠে নামবে সাকিব-মুশফিকরা। তবে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে কেমন হতে পারে বাংলাদেশ একাদশ, এ নিয়ে ভক্তদের মনে প্রশ্ন কৌতূহলের শেষ নেই।

বিশ্বকাপ প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক ছিলেন লিটন দাস। স্বাভাবিকভাবেই স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে ওপেনিংয়ে টাইগার একাদশে তিনি থাকছেন। দুই প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারেননি আরেক ওপেনার নাঈম শেখ। অন্যদিকে সৌম্য সরকার রান পেয়েছেন শেষ ওই দুই ম্যাচে। এছাড়া বল হাতেও কিছু কার্যকরী ওভার করতে পেরেছেন তিনি। বিশ্বকাপ শুরুর প্রথম ম্যাচে টাইগার একাদশে ওপেনিংয়ে সৌম্য ও লিটন এগিয়ে থাকছেন।

তিন, চার ও পাঁচ নম্বর পজিশনে থাকছেন দলের মোস্ট সিনিয়র তিন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দলের প্রয়োজনে তাদের ব্যাটিং পজিশন পরিবর্তন হতে পারে। কিন্তু্ এই তিনজন একাদশে থাকছেন এটা নিশ্চিত করেই বলা যাচ্ছে। ছয় ও সাত নম্বর পজিশনে থাকছেন নুরুল হাসান সোহান ও আফিফ হোসেন ধ্রুব। এরপর চারজন বোলার।

উইকেটের ধরণ বুঝে তিন পেসার ও দুই স্পিনার নিয়ে একাদশ গড়তে পারে বাংলাদেশ দল। আবার দুই পেসার ও তিন স্পিনার নিয়েও একাদশ সাজানো হতে পারে। সেক্ষেত্রে তিনজন পেসার অর্ন্তভূক্ত হলে সাকিবের সঙ্গে আরেকজন স্পিনার হিসেবে খেলতে পারেন শেখ মেহেদি হাসান। তাদের সঙ্গে পেস অ্যাটাক সামলাবেন তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান ও সাইফুদ্দিন। যদি পেসার কমিয়ে স্পিনার আরও একজন বাড়ানো হয় সেক্ষেত্রে বাদ পড়তে পারেন সাইফুদ্দিন। একাদশে ঢুকতে পারেন নাসুম আহমেদ।

বাংলাদেশ দলের সম্ভাব্য একাদশ: সৌম্য সরকার, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান সোহান, শেখ মেহেদি হাসান, সাইফুদ্দিন/নাসুম আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান ও তাসকিন আহমেদ।

Facebook Comments Box