মালালার ‘মানুষ কেন বিয়ে করে, বুঝি না’ মন্তব্যে উত্তাল পাকিস্তান

সবচেয়ে কম বয়সী নোবেল শান্তি পুরস্কারজয়ী পাকিস্তানের মালালা ইউসুফজাই। মাত্র ১৪ বছর বয়সে তিনি তালেবানদের হাতে গুলিবিদ্ধ হন। সেই থেকেই তিনি বিশ্ববাসীর কাছে পরিচিত। ফ্যাশন ও লাইফস্টাইল বিষয়ক বিখ্যাত ‘ভোগ’ পত্রিকার জুন সংখ্যায় তাকে এবার প্রচ্ছদে স্থান দেওয়া হয়েছে। মালালার একটি সাক্ষাৎকারও প্রকাশিত হয়েছে এই সংখ্যায়।

নোবেলজয়ী মালালা ম্যাগাজিনটির সঙ্গে ব্যক্তিজীবন, বিশ্বাস, পড়াশোনা, টুইটারে কর্মকাণ্ড এবং অ্যাপলটিভি প্লাসের সঙ্গে তার নতুন অংশীদারিত্ব নিয়ে কথা বলেছেন। সেই সাক্ষাৎকারে মালালার কাছে বিয়ের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে বিস্ময় প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘আমি বুঝতে পারি না, কেন সবাই বিয়ে করেন? দু’জনের সম্পর্ক একটি পার্টনারশিপও হতে পারে।

মালালার এমন মন্তব্যের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা চলছে। একই সঙ্গে পাকিস্তানে মালালার মন্তব্য নিয়ে তুমুল সমালোচনা হচ্ছে। এই মন্তব্য মালালাকে পাকিস্তানে গরম পানিতে ফেলে সমালোচনার তীরে বিদ্ধ করতে সময় নেয়নি। দেশটির সংসদ সদস্য থেকে শুরু করে ধর্মীয় নেতা, শিক্ষাবিদ এমনকি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সাধারণ ব্যবহারকারীরাও মালালাকে এক হাত নিয়েছেন। অনেকে তার বিরুদ্ধে পশ্চিমা সমাজ-সংস্কৃতি ও ভাবধারার বিস্তার মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ করেছেন।

পাকিস্তানের পার্লামেন্টেও মালালা ইউসুফজাইয়ের বিয়ে-বিতর্কের মন্তব্যের সমালোচনা হয়েছে। এমনকি দেশটির বিরোধী রাজনৈতিক দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি), জামায়াত-ই-ইসলামি ও জমিয়ত উলেমা-ই-ইসলামের সদস্যরা মালালা বিয়ের মন্তব্য পরিষ্কার করতে তার পরিবারের সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান।

মালালা ইউসুফজাই বলেন, প্রত্যেকে তাদের সম্পর্কের গল্পগুলো সামাজিক যোগাযোগে শেয়ার করছেন। আমি এখনও বুঝি না মানুষ কেন বিয়ে করে? আপনার জীবনে যদি একজন মানুষের দরকার হয়, তাহলে কেন আপনাকে বিয়ের কাগজে স্বাক্ষর করতে হবে? কেন শুধুমাত্র এটি এক ধরনের পার্টনারশিপ হতে পারে না?’

মালালার বাবা টুইটে বলেন, মালালার মন্তব্যের সত্যতা নেই। গণমাধ্যম এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম মালালার মন্তব্যকে প্রেক্ষাপটের বাইরে নিয়ে গেছে এবং নিজেদের ইচ্ছে মতো ব্যাখ্যা করছে।

Facebook Comments Box