শুভেচ্ছায় ভাসছেন মনোজ-মৌ

তুমুল শুভেচ্ছা বার্তায় ভেসে যাচ্ছেন সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা মনোজ প্রামাণিক ও সঞ্চালক মৌসুমী মৌ। এই শুভেচ্ছা নতুন জীবনের!

২৯ এপ্রিল সন্ধ্যার পর থেকে দু’জনের ফেসবুক দেয়ালে ঝুলছে ৫টি যুগল ছবি। বরের পরনে কালো পাঞ্জাবি আর কনের লাল শাড়ি; গলায় ফুলের মালা। দু’জনেই বেশ আনন্দময়, অন্তরঙ্গ। স্পষ্ট, সদ্য মালাবদল করে একে অপরের জীবনসঙ্গী হওয়ার মুহূর্ত সেটি।

বলা নেই, কওয়া নেই- এমনকি গুঞ্জনও নেই তাদের নিয়ে, অথচ ঘটে গেলো কত বড় ঘটনা! তাই ছবিগুলো দেখে ভক্তরা তো বটেই, সতীর্থরাও বেশ পিলে চমকে উঠলো। বিস্ময় প্রকাশ করলো। দ্বিধা নিয়ে প্রশ্নও করলো কেউ কেউ। তবে প্রত্যেকেই অভিনন্দন জানাতে ভুল করলো না।

ছবিগুলো মূলত ভাইরাল করেন নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টা নাগাদ পোস্ট করেন ফেসবুকে। ‘মনোজ ও মৌ’র বিয়ে! আহা!!’- এটুকু লেখে ট্যাগও করেন দুজনকে। মুহূর্তে লাইক, কমেন্ট, শেয়ারে ভেসে গেলো ছবিগুলো। অথচ তিন জনের একজনও টুঁ-শব্দটি করলো না, পার হলো মধ্যরাত।

তবে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেলো, বিয়ে-থা কিচ্ছু নয়। সবাইকে চমকে দেওয়ার জন্যই যুক্তি করে এমনটা করেছেন তারা।

জানা গেছে, ছবিগুলো মূলত চয়নিকা চৌধুরীর ঈদের বিশেষ একটি নাটকের লোকেশনে তোলা। সম্প্রতি কোভিড নেগেটিভ হয়েই ক্যামেরা নিয়ে মাঠে নামলেন ‘বিশ্বসুন্দরী’ খ্যাত এই নির্মাতা। মাঠে নামবেন আর আওয়াজ দেবেন না- তা তো হতে পারে না।

মনোজ প্রামাণিককে বলা হয় এই সময়ের সবচেয়ে মেধাবী অভিনেতা। নাটক, বিজ্ঞাপন, চলচ্চিত্র, ওয়েব সিরিজ- সর্বত্র প্রমাণিত প্রামাণিক। শিক্ষক হিসেবেও তিনি বেশ জনপ্রিয় শিক্ষার্থীদের কাছে। ময়মনসিংহ জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাককানইবি) ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের প্রভাষক তিনি।

অন্যদিকে মৌসুমী মৌ-ও কম নন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনার অভিজ্ঞতা আছে দেশের বেশিরভাগ টিভি চ্যানেলে। সঙ্গে করপোরেট শো’তো রয়েছেই। অভিনয়েও দারুণ অভিজ্ঞতা রয়েছে তার। গত ঈদে তাকে দেখা গেছে কিংবদন্তি আফজাল হোসেনের বিপরীতে ‘অগ্নিফসল’ টেলিছবিতে। এটি নির্মাণ করেছেন ‘ঘুড্ডি’-খ্যাত বরেণ্য নির্মাতা সৈয়দ সালাহউদ্দীন জাকী।

Facebook Comments Box