৫০ ডলারে মঙ্গলগ্রহে জমি কেনার দাবি বাংলাদেশি প্রকৌশলীর!

মঙ্গল গ্রহে জমি কেনার দাবি করেছেন লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার সন্তান প্রকৌশলী এলাহান উদ্দিন। তা-ও আবার পানির দামে, মাত্র ৫০ ডলারে (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪২৫০ টাকায়)। তার দাবি, তিনি গত আগস্ট মাসে মঙ্গল গ্রহে এক একর জমি কিনেছেন।

মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) ইন্টারন্যাশনাল কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে ওই জমির দলিল হাত পান এলাহান উদ্দিন।

ম্যাপেও উল্লেখ রয়েছে কোথায় আছে তার জমি। তবে ওই জমি বাংলাদেশি বিজ্ঞানীদের জন্য গবেষণার জন্য উৎসর্গ করেছেন এই প্রকৌশলী।

মঙ্গল গ্রহে জমি কেনার বিষয়টি নিশ্চিত করে বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) প্রকৌশলী এলাহান উদ্দিন জাগো নিউজকে বলেন, প্রযুক্তি থেমে নেই। এরই মধ্যে মঙ্গল গ্রহে সফলভাবে অবতরণ করেছে নাসার মার্স ২০২০ পারসিভারেন্স রোভারটি। পৃথিবীতে বসেই মঙ্গলে বাসস্থান গড়ার জন্য কাজ করছে একদল বিজ্ঞানী। বিজ্ঞানীদের এ কাজেও সাক্ষী হয়ে থাকবে বাংলাদেশ। যেহেতু মঙ্গল গ্রহের গবেষণায় কাজ করেন বিখ্যাত বিজ্ঞানীরা, তাই তাদের মাধ্যমে বাংলাদেশের নাম বিশ্ব গবেষণায় ছড়ানোই আমার মূল লক্ষ্য।

তিনি বলেন, আমরা পিছিয়ে থাকতে চাই না। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মতো মঙ্গল গ্রহেও পা রাখবেন বাংলাদেশিরা। যদি কোনো দিন বাংলাদেশি বিজ্ঞানীরা মঙ্গল গ্রহে পা রাখতে পারেন, তাদের গবেষণার কাজে উৎসর্গ করা হবে ওই জমি।

এ বিষয়ে চন্দ্রপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, মঙ্গল গ্রহে জমি কেনার বিষয়টি বিভিন্ন মাধ্যমে জেনেছি। প্রকৌশলী এলাহান উদ্দিন একজন মেধাধী ছাত্র ছিলেন। প্রযুক্তির এ যুগে সবই সম্ভব।

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের বোদলা গ্রামের মো. খায়রুল ইসলামের ছেলে প্রকৌশলী এলাহান উদ্দিন। তার তিন ছেলের মধ্যে ইঞ্জিনিয়ার এলাহান উদ্দিন সবার ছোট। তিনি বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সায়েন্সেস থেকে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে বিএসসি এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএসসি ডিগ্রি লাভ করেন।

এলাহান উদ্দিন বর্তমানে আইসিটি এমপ্লোয়ি সোসাইটি অব বাংলাদেশের (আইসিটিইএসবি) পরিচালক ও সফটওয়্যার প্রকৌশলী।

বলিউডের প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত, শাহরুখ খানসহ অনেকেই চাঁদে জমির মালিক হয়েছেন। নতুন খবর হলো চাঁদ ছাপিয়ে মানুষের নজর এখন মঙ্গল গ্রহের দিকে। জমি সেই কেনার তালিকায় নাম লেখালেন বাংলাদেশি প্রকৌশলী এলাহান উদ্দিন।

প্রকৌশলী এলাহান উদ্দিনের দাবি, তিনি যে প্রতিষ্ঠান থেকে মঙ্গল গ্রহে জমি কিনেছেন ওই প্রতিষ্ঠান থেকে এর আগে সাবেক তিন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ এইচ ডব্লিউ বুশ, জিমি কার্টার ও রোলান্ড রিগ্যান চাঁদে জমি কিনেছেন (সূত্র- ইউএসনিউজ)। আর ওই প্রতিষ্ঠানের মালিক ডেনিস হোপ।

এলাহান উদ্দিন জাগো নিউজকে বলেন, তিনি ডেনিস হোপের সঙ্গে যোগাযোগ করে ইন্টারন্যাশনাল মানি ট্রান্সফার গেটওয়ের মাধ্যমে মাত্র ৫০ ডলারের (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪২৫০ টাকা) বিনিময়ে মঙ্গল গ্রহে জমি কিনেছেন।

২০২৩ সাল নাগাদ মঙ্গল অভিযানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে নেদারল্যান্ডসের কোম্পানি ‘মার্স ওয়ান’। প্রথম দফায় চারজন যাওয়ার সুযোগ পাবেন।

মঙ্গল গ্রহে জমি কিনতে এখন পর্যন্ত আবেদন করেছে দুই লাখের বেশি মানুষ। তাদের মধ্যে এক লাখ ৫৮ হাজার জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা করা হয়েছে। পরিকল্পনা অনুসারে, আবেদনকারীদের মধ্যে থেকে প্রথম ৪০ জনকে নির্বাচন করা হবে। প্রশিক্ষণ শেষে চূড়ান্তভাবে চারজনকে বাছাই করা হবে।

Facebook Comments Box